You are currently viewing চিয়া সিড এর উপকারিতা ও অপকারিতা এবং খাওয়ার নিয়ম
চিয়া সিড এর উপকারিতা ও অপকারিতা এবং খাওয়ার নিয়ম

চিয়া সিড এর উপকারিতা ও অপকারিতা এবং খাওয়ার নিয়ম

সাম্প্রতিক সময়ে মানুষের খাবার এবং সুস্বাস্থ্য নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েকগুণ। প্রতিদিনের খাবারে কি কি পুষ্টিগুণ আছে এবং কোন খাবার  খেলে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও পুষ্টি মিলবে তা নিয়ে সচেতন এখন সকলেই। আর তাই নিত্য নতুন পুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাবার এর চাহিদা সবার কাছে বৃদ্ধি পেয়েছে সমান ভাবেই। 

এমনই এক পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সুপারফুড “চিয়া সিড”। সাস্থ সচেতন সমাজের কাছে এবং খাবার এর তালিকায় দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে চিয়া সিড। 

চিয়া সিড এর উৎস সালভিয়া হিসপানিকা নামক মিন্ট প্রজাতির উদ্ভিদ থেকে। এটি মূলত মধ্য আমেরিকা ও মেক্সিকোর মরুভূমি অঞ্চলে বেশি জন্মায় বলে জানা যায়। প্রাচীন অ্যাজটেক জাতি তাদের খাদ্য তালিকায় এটি  অন্তর্ভুক্ত করতেন বলে বিশেষজ্ঞরা দাবি করে থাকেন। চিয়া সিড মধ্য আমেরিকা এবং গুয়াতেমালায় এবং দক্ষিণ আমেরিকানরা চাষ করে আছেন বংশানুক্রমে। 

চিয়া বীজ মূলত ডিম্বাকৃতির ও ধূসর বর্ণের সাথে কালো এবং সাদা দাগযুক্ত হয়ে থাকে। এর ব্যাস প্রায় ২ মিলিমিটার (০.০৮ ইঞ্চি)। 

চিয়া সিডের পুষ্টিগুণ

চিয়া সিডের পুষ্টিগুণ

পুষ্টিবিদরা চিয়া সিডকে সুপারফুড নামে আখ্যায়িত করেছেন। কারণ, এতে আছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, কোয়েরসেটিন, কেম্পফেরল, ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড ও ক্যাফিক অ্যাসিড নামক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন, ক্যালসিয়াম এবং দ্রবণীয় ও অদ্রবণীয় খাদ্য আঁশ এর মত প্রয়োজনীয় উপাদান।

চিয়া সিড পুষ্টিকর খাবার কারন এতে রয়েছে:

  • দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশি ক্যালসিয়াম।
  • কমলার চেয়ে ৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি।
  • পালং শাকের চেয়ে ৩ গুণ বেশি আয়রন।
  • কলার চেয়ে দ্বিগুণ পটাশিয়াম।
  • মুরগির ডিম থেকে ৩ গুণ বেশি প্রোট।
  • স্যামন মাছের চেয়ে ৮ গুণ বেশি ওমেগা-৩।

এইসব তথ্য মিলেছে, ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অফ এগ্রিকালচার (United States Department of Agriculture) বা ইউএসডিএ (USDA) এর ন্যাশনাল নিউট্রিয়েন্ট ডাটাবেজ হতে। 

চিয়া সিড খাওয়ার উপকারিতা

পুষ্টিবিদদের মতে, চিয়া সিড এ আছে ওমেগা-৩ যা হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে এবং ক্ষতিকর কোলেস্টেরল দূর করতে কাজ করে থাকে। নিওমিত প্রতিদিন দুই চা চামচ চিয়া সিড খেলে শরীরের শক্তি এবং কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। 

এছাড়াও চিয়া সিড এর অনেক উপকার আছে যা নিম্নে তুলে ধরা হল:

  • চিয়া সিড শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে আরও শক্তিশালী করে। কারন এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট।
  • প্রোটিন এর সেরা উৎস হতে পারে চিয়া সিড মুরগির ডিম থেকে ৩ গুণ বেশি উচ্চমাত্রার প্রোটিন আছে চিয়া সিডে, যা আমাদের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ও উপকারী।
  • গরুর দুধের চেয়ে ৫ গুণ বেশি ক্যালসিয়াম আছে চিয়া সিডে। যা হাড়ের স্বাস্থ্য রক্ষা এবং মজবুত করে তুলতে বিশেষ কার্যকর ভুমিকা পালন করে থাকে।
  • চিয়া সিডে এ প্রচুর পরিমান এ ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। যা হৃদরোগের ঝুঁকি ও ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমাতেও বেশ কার্যকর।
  • চিয়া সিড ব্লাড সুগার স্বাভাবিক রাখে, যা ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে থাকে।
  • ভিটামিন এ, বি, ই, ডি ও সালফার আছে। প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ম্যাঙ্গানিজ ও জিংক রয়েছে এই চিয়া সিডে!
  • এছাড়া চিয়া সিড গ্যাসের সমস্যা কমাতে সাহায্য করে থাকে এবং ভালো ঘুমাতে সাহায্য করে। পাশাপাশি এটি ত্বক, চুল ও নখ সুন্দর রাখে।

চিয়া সিড খাওয়ার নিয়ম:

সাধারণত চিয়া সিডের নিজস্ব কোনো স্বাদ থাকে না, তাই এটা সাধারণত সালাদ, কাস্টার্ড, স্মুদি যেকোনো খাবারের সাথে মিশিয়ে খাওয়া যায়।

এছাড়াও চিয়া সিড খাওয়ার বেশ কিছু পদ্ধতি আছে। যেহেতু এটি শুকনো বীজ, তাই পানি বা দুধে ভিজিয়ে রেখে তারপর খেতে হয় সাধারণত। চিয়া সিড দ্বারা পুডিং তৈরি করে খাওয়া যায়, দুধ বা দইয়ের সাথে মিক্স করে খেতে পারেন। ব্রেকফাস্ট এ বিভিন্ন ফল এর সাথে ভিজিয়ে রাখা চিয়া সিড মিসিয়ে খেয়ে থাকেন অনেকেই এর ফলে সকাল সকাল শরীরে দারুন শক্তির উৎস মেলে। এছাড়াও ওটস, ফালুদা বা অন্য কোনো ডেজার্টের সাথে খুব ভালো ভাবেই খাওয়া যেতে পারে চিয়া সিড।

বিন্নিফুড এর চিয়া সিড কেন সেরা?

বিন্নিফুড এর চিয়া সিড কেন সেরা

আমাদের চিয়া সিড এর বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য আমাদের চিয়া সিড কে করেয়াছে আলাদা এবং অনন্য।

  • আমরা নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে সেরা মানের এই চিয়া সিড সংগ্রহ করে থাকি। 
  • কয়েক ধাপে যাচাই বাচাই শেষে আপনাদের জন্য আমরা এই চিয়া সিড প্যাকেজিং করে থাকি।
  • আপনি আমাদের কাছে পাচ্ছেন সবসময় টাকটা চিয়া সিড, কারন আমরা অতিরিক্ত পরিমান এ স্টক করে রাখি না। 
  • ভালো কোয়ালিটির প্যাকেজিং এর ফলে আপনি পাবেন ফ্রেশ এবং টাটকা প্রোডাক্ট।
  • আমরা সারাদেশে হোম ডেলিভারি সুবিধা দিচ্ছি তাই আপনি পাচ্ছেন হ্যাসেল ফ্রী হোম ডেলিভারি।

তাহলে আমরা জানলাম, এই সুপারফুডটির হেলথ বেনিফিটস সম্পর্কে। যারা ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করছেন অথবা হেলদি ডায়েট চার্ট ফলো করছেন, তাদের জন্য এই চিয়া সিড হাইলি রেকমেন্ডেড থাকবে। তবে, যেকোনো খাবারই পরিমিত পরিমাণে খাওয়া উচিত। খুব বেশি পরিমাণে খেলে এটা থেকে অ্যালার্জি হতে পারে। 

যদি কোয়ালিটি বিবেচনা করেন তবে ”বিন্নিফুড” এর চিয়া সিড হবে আপনার প্রথম পছন্দ ও সবার শীর্ষে। তাই দেরি না করে এখনি অর্ডার করুন।

ভালো থাকবেন, নিজের সাস্থের প্রতি খেয়াল রাখবেন। আশাকরি, বিন্নিফুড এর সাথেই থাকবেন।

Leave a Reply